Home » তোমার স্মরণে হে চিন্তানায়ক!

তোমার স্মরণে হে চিন্তানায়ক!

Advertisements In Feed
Advertisements

১৯৭০-৭১খ্রিস্টাব্দ। এ সালটি উত্তর পূর্ব ভারতের ইসলামী ইতিহাসে থাকবে চির উজ্জ্বল,চির ভাস্বর। যুগশ্রেষ্ঠ মনীষী,বিখ্যাত সমাজ সংস্কারক,খলিফায় মাদানি, হযরত মাওলানা আব্দুল জলিল চৌধুরী রাহঃ এ বছরটিতে ইসলামী বুনিয়াদি শিক্ষা ক্ষেত্রে এক বৈপ্লবিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। নদওয়ার শিক্ষা বোর্ড পরিচালিত ছবাহি মক্তবের চূড়ান্ত পরীক্ষার শুভারম্ভ করেছিলেন তিনি। একই তারিখে একই প্রশ্নপত্রে সুনির্দিষ্ট নীতিমালার মাধ্যমে গোটা উত্তর পূর্ব ভারতে এটাই ছিল প্রথম ছবাহি মক্তব চূড়ান্ত পরীক্ষা। বহু ঘাত-প্রতিঘাত,বাধা-বিপত্তির পাহাড় মাড়িয়ে পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করেছিলেন জলিলী ব্রিগেড। তাঁদের সেই নিষ্ঠাপূর্ণ,লিল্লাহিয়াত ভরা কর্মসূচি আজও চলছে স্বমহিমায়, নিজস্ব ধারায়। এই সূদূর প্রসারী পরিকল্পনার আওতায় এ দীর্ঘ সময়ে হাজার হাজার কচিকাঁচা উপকৃত হয়েছেন।

সেলুট জানাতে হয় হযরত শায়খের চিন্তাধারাকে। শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করতে হয় তাঁর দূরদর্শিতাকে। স্মরণ করতে হয় তাঁর উচ্চ মার্গের ব্যক্তিত্বকে। আজকের বিশ্বায়নের যুগেও গুরুত্ব হারায় নি তাঁর সেই । বরং গুরুত্ব দিন দিন বেড়েই চলছে। নদওয়াতুত তামীর পরিচালিত ছবাহি মক্তবসমূহে হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী আধুনিক পদ্ধতিতে ইসলামী বুনিয়াদি শিক্ষা অর্জন করছে। পাঁচ বছরীয় কোর্স শেষে ছবাহি মক্তব চূড়ান্ত পরীক্ষায় অবতীর্ণ হচ্ছে। প্রতিযোগিতামূলক এই পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে তাদের জ্ঞানের বিকাশ ঘটাচ্ছে। প্রতি বছরের মত এবারও উত্তর পূর্বাঞ্চল জুড়ে ছবাহি মক্তবের চূড়ান্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এবারের ছবাহি মক্তব ফাইনাল পরীক্ষার ফলাফল আজ ঘোষণা করা হল। এতে সর্বমোট ৬৫৮৯ জন ছাত্র ছাত্রীর মধ্যে ৪৬৬২ জন প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছেন। দ্বিতীয় বিভাগে পাশের মুখ দেখেছেন ১৩২০ জন । তাছাড়া ১৪০ জন তৃতীয় বিভাগে পাশ করেছেন। উল্লেখ্য উত্তর পূর্ব ভারত জুড়ে ১৫৪ টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হওয়া পরীক্ষায় ১৪৫০ টি মক্তবের ছাত্র ছাত্রী অংশগ্রহণ করেছিলেন।

আজকের এই দিনে আমীরে শরীয়ত হযরত মাওলানা আব্দুল জলিল চৌধুরী এবং তাঁর অনুসারীদেরকে কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছি। তাঁদের মাগফিরাত ও দরজা বুলন্দী কামনা করছি।

Rashid Qasimi

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top